1. admin@durantoprokash.com : admin :
সোমবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৮:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
ঝিনাইদহে প্রয়াত যুবদল নেতা নুরুল হক মুকুলের স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিল ঝিনাইদহে বিএনপির সমাবেশ অনুষ্ঠিত আমাদের সমাজের শিশু ও শিশুর শিক্ষা ঝিনাইদহে সাংবাদিক সাদ্দাম হোসেনের উপর সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন চোরের উৎপাত থেকে বাঁচতে ব্যবসায়ী ও গ্রামবাসীর মানববন্ধন ঝিনাইদহ জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে দুর্নীতি, আর্থিক অনিয়ম ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ ঝিনাইদহে বিএনপি-জামায়াতের নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে আ.লীগের বিক্ষোভ ঝিনাইদহে বেড়েই চলেছে সাপে কাটা রোগী: অ্যান্টিভেনম সংকট! মসজিদ কমিটির সাথে এমপি আনার এর মতবিনিময় নতুন প্রজন্মকে যুদ্ধকালীন বীরত্বগাথা গল্প শোনানো অনুষ্ঠান

ঝিনাইদহে জমি বিক্রয়ের পাওনা টাকা উদ্ধারে ভুক্তভোগীর সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২০৭ Time View

ঝিনাইদহে জমি বিক্রয়ের পাওনা টাকা উদ্ধারের দাবীতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মহেশপুর উপজেলার পূর্বপুরন্দপুর গ্রামের জিয়া উদ্দীন খানের পুত্র কে.এম সালাহ উদ্দীন। মঙ্গলবার সকালে ঝিনাইদহ প্রেস ক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি অভিযোগ করেন, তার শাশুড়ি শাহানুর নেছাসহ কালিগঞ্জ উপজেলার দাদপুর মৌজার ২৪০ আর এস খতিয়ানভূক্ত ২১১ শতক জমি পঁচিশ লক্ষ সাতান্ন হাজার পাঁচ শত পচাত্তর টাকায় বিক্রি করেন একই গ্রামের আফসার আলীর ছেলে মজনুর রহমান, মহর শেখের ছেলে জহির শেখ এবং যশোরের চৌগাছা উপজেলার সরূপপুর গ্রামের নূর আলীর ছেলে আব্দুর রাজ্জাকের কাছে। জমি রেজিস্ট্রি করার সময় ক্রেতারা তাদের নগদ ১৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা পরিশোধ করেন। বাকি টাকা ১১ লাখ ৮৫ হাজার টাকার জন্য চেক প্রদাণ করেন। চেক নং ৬৯০৬১২৬, হিসাব নং-১২২৮৪ ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিঃ কোটচাঁদপুর শাখা-ঝিনাইদহ।
এদিকে জমি রেজিষ্ট্রি হওয়ার পর চেক ফেরৎ নিয়ে টাকা না দিতে নানা ফন্দি আটে প্রতারক মজনু।
গত ৫ অক্টোবর চেক ফেরত দিয়ে টাকা নেওয়ার জন্য সালাহ উদ্দিনকে বাড়িতে ডাকে মজনু। সেখানে টাকা না দিয়ে চেক ছিনিয়ে নিয়ে ছিড়ে ফেলে মজনু ও তার ছেলে পুলিশ সদস্য মিজান। ১১ লাখ ৮৫ হাজার টাকার স্থলে ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা দেয়। বাকি টাকার জন্য চেক চাইলে সালাহ উদ্দিন ও তার সাথে যাওয়া তার পরিবারের লোকজনকে হত্যার হুমকি দেয়। বিষয়টি নিয়ে বিচার চাইতে সালাহউদ্দিন কালীগঞ্জ থানায় অভিযোগ করে। অভিযোগ করার পর থেকে মিজান ও তার লোকজন মোবাইলে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দেওয়া শুরু করেছে।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, আমরা আমাদের পাওনা টাকা উদ্ধারের জন্য পুলিশ সুপারের কাছে গিয়েছি। কিন্তু পাওনা টাকা উদ্ধারের কোন ব্যবস্থা হয়নি। তিনি পাওনা টাকা উদ্ধার এবং শিশু সন্তানসহ পরিবারের সদস্যদের জীবনের নিরাপত্তা দাবী করে জেলা প্রশাসকসহ উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, ভূক্তভোগী শাহানুর নেছা এবং ইদ্রিস আলী, মেহেনুর নেছা, সুমাইয়া ইসলা, তমা খাতুন প্রমূখ।
এ বিষয়ে মজনুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© দুরন্ত প্রকাশ কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত ২০২০ ©
Theme Customized BY WooHostBD