1. admin@durantoprokash.com : admin :
শুক্রবার, ২০ মে ২০২২, ১২:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
মায়ের চিকিৎসা করাতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলো ছেলে মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ঝিনাইদহে আবন হত্যা মামলার পলাতক আসামী গ্রেফতার ঝিনাইদহে মিথ্যা মামলা ও হয়রানির প্রতিবাদে মানববন্ধন ঝিনাইদহে ফ্যামিলি কার্ডে টিসিবি’র পণ্য নিতে এসে হয়রানির শিকার নিম্ন আয়ের মানুষ ঝিনাইদহে দুই সন্তানের জননীকে ধর্ষনের অভিযোগ নিত্যপণ্যের মুল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ঝিনাইদহে বিএনপির স্মারকলিপি প্রদান নিত্যপণ্যের মুল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে ঝিনাইদহে বিএনপির স্মারকলিপি প্রদান ঝিনাইদহে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন সাংবাদিকদের কাজ অন্ধকারে লাইট মেরে তথ্য বের করে আনা- তথ্য কমিশনার মরতুজা আহমদ

খুলনা বিভাগে এক দিনে আবারও সর্বোচ্চ করোনা শনাক্তের রেকর্ড

স্টাফ রিপোর্টার, ঝিনাইদহঃ
  • Update Time : রবিবার, ১৩ জুন, ২০২১
  • ১৩৯ Time View

খুলনা বিভাগে টানা চার দিন করোনায় শনাক্তের রেকর্ড ভাঙার পর গতকাল শনাক্তের হার কিছুটা কমেছিল। তবে এক দিন পরই ফের শনাক্তের নতুন রেকর্ড। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে ৬০৬ জনের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এর আগে ১১ জুন সর্বোচ্চ ৫৯৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছিল।
একই সময়ে বিভাগের ১৬৬ জন রোগী সুস্থ হয়েছেন। অন্যদিকে মারা গেছেন আটজন। গত ২৪ ঘণ্টায় যশোরে চারজন এবং ঝিনাইদহ, খুলনা, কুষ্টিয়া ও সাতক্ষীরায় একজন করে মারা গেছেন। খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক রাশেদা সুলতানা আজ রোববার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বিভাগের ১০ জেলায় এখন পর্যন্ত করোনায় মোট সংক্রমিত হয়েছেন ৩৯ হাজার ৬১৪ জন। মোট সুস্থ হয়েছেন ৩৩ হাজার ১২ জন। করোনাক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭১৯ জন। বিভাগে করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে খুলনা জেলায় রয়েছেন ১৯৩ জন, কুষ্টিয়ায় ১৩০, যশোরে ৮৯, চুয়াডাঙ্গায় ৬৪, ঝিনাইদহে ৫৮, বাগেরহাটে ৫৭, সাতক্ষীরায় ৫২, নড়াইলে ২৭, মেহেরপুরে ২৬ ও মাগুরায় ২৩ জন। সামগ্রিকভাবে বিভাগে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৮২ শতাংশ।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দৈনিক করোনাসংক্রান্ত প্রতিবেদন বিশ্লেষণে দেখা গেছে, চলতি মাসের প্রথম ১৩ দিনে (১-১৩ জুন) ৫ হাজার ৩২৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়। এ সময়ে মারা যান ৭৪ জন। ১৯ থেকে ৩১ মে পর্যন্ত ১৩ দিনে ১ হাজার ৮৫৭ জন শনাক্ত হয়েছিল। ওই সময় ১৩ দিনে মারা যান ৪৮ জন। চলতি মাসে প্রথম ১৩ দিনে আগের একই সময়ের চেয়ে মৃত্যু দেড় গুণের বেশি এবং শনাক্ত প্রায় ৩ গুণ বেড়েছে।
গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের ১০ জেলায় ১ হাজার ৬৩৩ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। শনাক্তের হার ৩৭ দশমিক ১১ শতাংশ। এই সময়ে আগের দিনের চেয়ে ৫৯২টি নমুনা বেশি পরীক্ষা হয়েছে। আগের দিন শনাক্তের হার ছিল ৩০ দশমিক ৬৪ শতাংশ।
এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের ১০ জেলার মধ্যে ৪টিতে শনাক্তের হার ৫০ শতাংশের বেশি। শনাক্তের হার সবচেয়ে বেশি ছিল চুয়াডাঙ্গায় ৬৪ দশমিক ৯১ শতাংশ, এরপর সাতক্ষীরায় ৬৪ দশমিক ২, নড়াইলে ৫০ দশমিক ৭৫ ও বাগেরহাটে শনাক্তের হার ছিল ৫০ শতাংশ।
বিভাগের মধ্যে শনাক্তের সর্বনিম্ন হার খুলনায় ২৭ দশমিক ৫৭ শতাংশ। খুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৪২৮ নমুনা পরীক্ষায় ১১৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ছিল ৩৪ দশমিক ৮৩ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত রোগীদের মধ্যে খুলনায় রয়েছেন ১১৮ জন (নগরে ৮০ জন)। এ ছাড়া বাগেরহাটে ৫৫ জন, চুয়াডাঙ্গায় ৩৭, যশোরে ১৪৫, ঝিনাইদহে ৫১, কুষ্টিয়ায় ৭৪, মাগুরায় ১৭, মেহেরপুরে ২৩, নড়াইলে ৩৪ ও সাতক্ষীরায় ৫২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক (রোগনিয়ন্ত্রণ) ফেরদৌসী আক্তার প্রথম আলোকে বলেন, বিভাগে প্রথমবারের মতো এক দিনে শনাক্তের সংখ্যা ৬০০ অতিক্রম করেছে। আগের তুলনায় শনাক্তের হারও বেড়েছে। তবে মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মানার তেমন প্রবণতা নেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ছাড়া সংক্রমণ পরিস্থিতির উন্নতি হবে না বলে মনে করেন তিনি।

গত বছরের ১৯ মার্চ খুলনা বিভাগের চুয়াডাঙ্গায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হন। আর সব মিলিয়ে বিভাগটিতে গতকাল শনিবার মোট আক্রান্তের ৩৯ হাজার ছাড়িয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© দুরন্ত প্রকাশ কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত ২০২০ ©
Theme Customized BY WooHostBD